Darul Ifta, Rahmania Madrasah Sirajganj

ভাষা নির্বাচন করুন বাংলা বাংলা English English
ফাতাওয়া খুঁজুন

ওমরায় সফররত ব্যক্তিদের রোজার বিধান!

ফতওয়া কোডঃ 158-স-03-10-1443

প্রশ্নঃ

১. বাংলাদেশ থেকে এক ব্যক্তি ৩০ শাবান দুপুরের খাবার খেয়ে ৩টার ফ্লাইটে  ওমরার উদ্দেশ্যে  রওনা হয়ে স্থানীয় সময় বিকেল ৬টায় জেদ্দা পৌঁছে দেখলো ১ম রোজার ইফতারের প্রস্তুতি  চলছে।

২. অন্য ব্যাক্তি ওমরাহ শেষ করে ৩০ রমজানের পরদিন ১ শওয়াল ঈদের সলাত পরে সকাল ৯ টার ফ্লাইটে স্থানীয়  সময় বিকেল ৬টায় ঢাকায় পৌঁছে দেখলো সবাই ৩০তম রোজার ইফতারের প্রস্তুতি  নিচ্ছে।

উপরোক্ত দুই ব্যক্তির করনীয় কী? শরয়ী দলিল সহ জানতে চাই।

সমাধানঃ

بسم اللہ الرحمن الرحیم

১. ১ম ব্যক্তির জন্য কৰ্তব্য হলো সে পরবৰ্তিতে ঐ দিনের রোজাটা কাযা করবে। তবে কাফফারা দিতে হবেনা।

২. ২য় ব্যক্তির জন্য করনীয় হলো তার যদি ২৯ দিন পূৰ্ন না হয়। তাহলে সে ঐ রোজাটা কাযা করবে। আর যদি ২৯ দিন পুৰ্ন হয় তাহলে তাকে উক্ত দিনের রোজা কাযা করতে হবেনা। তবে দিনের বাকিটা সময় অন্য রোজাদারদের সম্মানে খানাপিনা থেকে বিরত থাকা থাকবে।

সুত্রসমূহ

سنن الترمذي و ابو داود: الصوم يوم تصومون و الفطر يوم تفطرون

در المختار: 2/408

حاشية ابن عابدين: 3/44 فيهم.االاصل في هذه المساءل ان كل من صار في اخر الانهار بصفة لو كان في اول النهار عليها للزمه الصوم فعليه المساك

بدائع الصنائع: كتاب الصوم فصل في حكم الصوم المقت اذا فات عن وقته

حاشية ابن عابدين: 3/386

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 139 জন।