Darul Ifta, Rahmania Madrasah Sirajganj

ভাষা নির্বাচন করুন বাংলা বাংলা English English
ফাতাওয়া খুঁজুন

হাদিস ও সুন্নত

ঘুমানোর সময় স্ত্রীর ডান পাশে স্বামী ঘুমাবে, কতটুকো ঠিক?

ফতওয়া কোডঃ 117-তাত,হাসু-10-05-1443

প্রশ্নঃ

আসসালামু আলাইকুম। হযরত, আমার একটি প্রশ্ন ছিল দয়া করে আমার প্রশ্ন এর উত্তর প্রদান করবেন যাতে করে সঠিক নিয়ম জানতে পারি। প্রশ্ন হলোঃ ঘুমানোর সময় স্ত্রীর ডান পাশে স্বামী ঘুমাবে, এরকম কোন বিধান শরীয়তে আছে কি?

সমাধানঃ

بسم اللہ الرحمن الرحیم

ঘুমানোর সময় স্ত্রীর ডান পাশে স্বামী বা স্বামীর ডান পাশে স্ত্রী ঘুমাবে, এ ধরনের কোন নিয়ম ইসলামী শরিয়তে নাই।

খুব সম্ভবত এটি হিন্দুয়ানী কোন প্রথা হতে পারে, ইসলাম কোন প্রথা সমর্থন করে না।

তবে একজন মুসলমান সে নারী হোক পুরুষ ঘুমানোর সময় অবশ্যই নিজ ডান কাতে শয়ন করবে, কেননা এটা রসুলুল্লাহ সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর নির্দেশ ও সুন্নত।

সুত্রসমূহ

صحیح البخاری: رقم 6311 وَعنِ البرَاءِ بنِ عازِبٍ رَضِيَ اللَّه عنْهمَا قَالَ قَالَ لي رسُولُ اللَّهِ ﷺ إِذَا أَتَيتَ مَضْجَعَكَ فَتَوضَّأْ وضُوءَكَ لِلصَّلاةِ ثُمَّ اضْطَجِعْ عَلى شِقِّكَ الأَيمَن

صحیح المسلم: رقم 2710 وَعنِ البرَاءِ بنِ عازِبٍ رَضِيَ اللَّه عنْهمَا قَالَ قَالَ لي رسُولُ اللَّهِ ﷺ إِذَا أَتَيتَ مَضْجَعَكَ فَتَوضَّأْ وضُوءَكَ لِلصَّلاةِ ثُمَّ اضْطَجِعْ عَلى شِقِّكَ الأَيمَن

سنن ابي داود: رقم 5046 وَعنِ البرَاءِ بنِ عازِبٍ رَضِيَ اللَّه عنْهمَا قَالَ قَالَ لي رسُولُ اللَّهِ ﷺ إِذَا أَتَيتَ مَضْجَعَكَ فَتَوضَّأْ وضُوءَكَ لِلصَّلاةِ ثُمَّ اضْطَجِعْ عَلى شِقِّكَ الأَيمَن

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 685 জন।

জান্নাতে রসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্ত্রী হিসেবে কারা থাকবেন? বিবি আছিয়া, বিবি মরিয়ম ও হযরত মূসা আ. এর বোন থাকবেন কি?

ফতওয়া কোডঃ 90-বি,হাসু-21-02-1443

প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম, আশাকরি আল্লাহর অশেষ রহমতে ভালো আছেন, আমার ২টি প্রশ্ন ছিল।

১.জান্নাতে রসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্ত্রী হিসেবে কে থাকবেন?

২.আমি একটি হাদিস শুনেছি যে, জান্নাতে রসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্ত্রী হিসেবে বিবি আছিয়া, বিবি মরিয়ম ও হযরত মূসা আ. এর বোনও থাকবেন।এই হাদিস কি সহিহ? উত্তর জানালে উপকৃত হব, জাযাকাল্লাহ।

উত্তরঃ بسم الله الرحمن الرحيم

১. জান্নাতে রসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্ত্রী হিসেবে দুনিয়াতে যারা ছিলেন তারাই থাকবেন।

২. জান্নাতে রসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্ত্রী হিসেবে বিবি আছিয়া, বিবি মরিয়ম ও হযরত মূসা আ. এর বোন থাকবেন বলে হাদিসে উল্লেখ রয়েছে, তবে এই হাদিসের রেওয়ায়াত দুর্বল।

সুত্রঃ তিরিমিযী শরিফঃ হাদিস নং ২৫৬৩, ইবনে মাজাহ শরিফঃ হাদিস নং ৪৩৩৮, মুসনাদে আহমাদঃ হাদিস নং ১১০৭৮, তাফসিরে কুরতুবীঃ ১৩/১৭০, রুহুল মাআনীঃ ২৮/৪৮১, আল মুজামুল কাবীরঃ ৮/২৫৮-২৫৯, মাজমাউয যাওয়ায়েদঃ ১৮/৬২৭

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 206 জন।

হযরত আইশা রা. ফজিলত সম্পর্কে উভয় হাদিসই সহিহ

ফতওয়া কোডঃ 62-হাসু-29-11-1442

প্রশ্নঃ আসসালামুয়ালাইকুম, আশাকরি আল্লাহর অশেষ রহমতে ভালো আছেন। আমার প্রশ্নটি হল,

১. عَنْ عَائِشَةَ، أَنَّ جِبْرِيلَ، جَاءَ بِصُورَتِهَا فِي خِرْقَةِ حَرِيرٍ خَضْرَاءَ إِلَى النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم فَقَالَ ‏ “‏ إِنَّ هَذِهِ زَوْجَتُكَ فِي الدُّنْيَا وَالآخِرَةِ ‏”‏ ‏.‏

হযরত আয়িশাহ্ (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ: হযরত জিবরীল (‘আঃ) একখানা সবুজ রংয়ের রেশমী কাপড়ে তার (‘আয়িশাহ্‌র) প্রতিচ্ছবি নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর কাছে নিয়ে এসে বলেন, ইনি দুনিয়া ও আখিরাতে আপনার স্ত্রী।

২. أن النبي صلى الله عليه وسلم قال لعائشة -رضي الله عنها-: «أَمَا تَرْضَيْنَ أَنْ تَكُونِي زَوْجَتِي فِي الدُّنْيَا وَالْآخِرَةِ؟» قُلْتُ: بَلَى وَاللَّهِ، قَالَ: «فَأَنْتِ زَوْجَتِي فِي الدُّنْيَا وَالْآخِرَةِ»
রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হযরত আয়িশাকে উদ্দেশ্য করে বললেন, তুমি কি এতে সন্তুষ্ট নও যে, তুমি দুনিয়া ও আখিরাতে আমার স্ত্রী হবে? আমি বললাম, আল্লাহর কসম! অবশ্যই। তিনি বললেন, তুমি দুনিয়া ও আখিরাতে আমার স্ত্রী।

উত্তরঃ بسم الله الرحمن الرحيم

হযরত আইশা রা. এর ফজিলত সম্পর্কে কুরআন ও সুন্নাহর অনেক উক্তি রয়েছে, উপরোক্ত উভয় হাদিস সহিহ, এছাড়া এ হাদিসগুলো কিছু ভিন্ন ভাবে সহীহ বুখারী ও মুসলিম শরীফে উল্লেখ আছে।

সুত্রঃ সহীহ বুখারী, হাদীস নং ৫১২৫, ৭০১১, ৭০১২, মুসলিম শরীফঃ ৭/১৩৪, তিরমিজি শরীফ, হাদিস নং ৩৮৮০, সহিহ ইবনে হিব্বান, হাদিস নং ৭০৯৪, মুস্তাদরাক হাকিম, ৪/১০, সহিহ ইবনে হিব্বান, হাদিস নং ৭০৯৫

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 203 জন।

বিতরের নামাযে দুআয়ে কুনুতের পূর্বে হাত উঠানো কেমন?

ফতওয়া কোডঃ 07-সা,হাসু-09-08-1442

প্রশ্নঃ

আসসলামু আলাইকুম কেমন আছেন হযরত। এক লা-মাযহাবী ভাই বিতরের নামাজের শেষ রাক’আতে দুআয়ে কুনুত এর পূর্বে হাত উঠানোর কোন প্রমাণ নাই বলে দাবি করেছেন, তাই আমি জানতে চাই বিতরের নামাজের শেষ রাক’আতে দুআয়ে কুনুত এর পূর্বে হাত উঠানোর কোন প্রমাণ আছে কি না?

সমাধানঃ

بسم الله الرحمن الرحيم

বিতরের নামাজের শেষ রাক’আতে দুআয়ে কুনুত পাঠ করার পূর্বে হাত উঠানো হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। এটি সুন্নত ও আমলযোগ্য। এটা কিরআত শেষ হওয়ার ইঙ্গিত স্বরূপ অর্থাৎ এর দ্বারা কিরআত ও দূআর মাঝে পার্থক্যকরণ হয়। অতএব যারা বলে হাদিসে এর কোন প্রমাণ নাই তাদের কথা ঠিক নয়।

সুত্রসমূহ

جزء رفع اليدين: 82

مصنف ابن ابي شيبة: 7020-7021

شرح معاني الاثار: 2/178 رقم 3825

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 194 জন।