Darul Ifta, Rahmania Madrasah Sirajganj

ভাষা নির্বাচন করুন বাংলা বাংলা English English
ফাতাওয়া খুঁজুন

বিদআত ও প্রথা

বাচ্চার কপালে কুসংস্কার মনে না করে শুধু সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য টিপ দেয়া কেমন?

ফতওয়া কোডঃ 159-বিপ্র-15-10-1443

প্রশ্নঃ

আমার জানার বিষয় হল, বাচ্চার কপালে কোন ধরনের কুসংস্কার মানা ছারা শুধুমাত্র সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য যদি টিপ দেই তাহলে সেটা শরীয়ত সম্মত হবে কিনা?

সমাধানঃ

بسم اللہ الرحمن الرحیم

কোন আবস্থাতেই কপালে টিপ ব্যবহার করা জায়েয নেই, চাই ছোট হোক বা বড় হোক, চাই তা সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য হোক বা নজর লাগার ভয়ে হোক। আর নজর লাগার ভয়ে ব্যবহার করা শিরক।

টিপ পড়া মূলত হিন্দুদের একটি অংশ। যা হিন্দুদের ধৰ্ম বিশ্বাস ও সংস্কৃতির অন্তৰ্ভূক্ত, বাংলা একাডেমিক ব্যবহারিক অভিধান এবং উইকিপিডিয়া এ কথা প্ৰমান করেছে যে, টিপ বৈষ্ণব সমপ্ৰদায়ের নারীর ব্যবহার করে থাকে, বৈষ্ণব সম্প্ৰদায় হলো হিন্দু ধৰ্মের একটি শাখা, সুতরাং এটি পরিধান করলে হিন্দুয়ানী সংস্কৃতির চৰ্চা করা হয়, যা ইসলামে হারাম।

সুত্রসমূহ

مسند احمد: رقم 3718 المرء مع من احب

الصحيح البخاري: رقم 6168, 5816

سنن ابي داود: رقم 4031 من تشبه بقوم فهو منهم

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 23 জন।

মৃত ব্যক্তির জন্য ৩ দিন, ৭ দিন, চল্লিশা বা মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা যাবে?

ফতওয়া কোডঃ 149-বিপ্র-02-08-1443

প্রশ্নঃ

১. মৃত ব্যক্তির জন্য ৩ দিন, ৭ দিন, বা চল্লিশা পালনের হুকুম কি?

২. মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা যাবে?

সমাধানঃ

بسم اللہ الرحمن الرحیم

মৃত ব্যক্তির কবরে সওয়াব পৌঁছানোর জন্য তিন দিনা, সাত দিনা, চল্লিশা বা মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা অথবা এদিন গুলোতে বিশেষ পদ্ধতিতে কিছু করা প্রমানিত নয়। এসব পালন করা বিদআত। এগুলো থেকে বিরত থাকা অত্যাবশ্যক।

সুত্রসমূহ

ردالمحتار على الدر المختار: 2/240 یکره اتخاذ الضیافة من الطعام من أهل المیت؛ لأنه شرع في السرور لا في الشرور وهي بدعة مستقبحة، وقوله: ویکره اتخاذ الطعام في الیوم الأول والثالث وبعد الأسبوع، ونقل الطعام إلی القبرفي المواسم، واتخاذ الدعوة لقراءة القرآن وجمع الصلحاء والقرّآء للختم أو لقراء ة سورة الإنعام أوالإخلاص

ردالمحتار على الدر المختار: 6/33 ومنها: الوصیة من المیت باتخاذ الطعام والضیافة یوم موته أو بعده و بإعطاء دراهم من یتلو القرآن لروحه أو یسبح و یهلل له، وکلها بدع منکرات باطلة، والماخوذ منها حرام للاٰخذ، وهو عاص بالتلاوة والذکر

الاعتصام للشاطبي: رقم 112 وعن أبي قلابة: ” لاتجالسوا أهل الأهواء، ولاتجادلوهم; فإني لاآمن أن يغمسوكم في ضلالتهم، ويلبسوا عليكم ما كنتم تعرفون”. قال أيوب: “وكان والله من الفقهاء ذوي الألباب”. وعنه أيضاً: أنه كان يقول: “إن أهل الأهواء أهل ضلالة، ولاأرى مصيرهم إلا إلى النار”. وعن الحسن: ” لاتجالس صاحب بدعة فإنه يمرض قلبك”

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 164 জন।

আহলে হাদিসের প্রতিষ্ঠাতা কে? তার নাম কি?

ফতওয়া কোডঃ 122-পফি,বিপ্র-17-05-1443

প্রশ্নঃ

আহলে হাদিসের প্রতিষ্ঠাতা কে? তার নাম কি? জানতে চাই, শুনেছি তিনি দেওবন্দি ছিলেণ!

সমাধানঃ

بسم اللہ الرحمن الرحیم

হযরত সায়্যিদ আহমাদ শহিদ রহ. এর দলে মওলবী আব্দুল হক বানারসী নামক এক ব্যক্তি ছিলো। যিনি গইরে মুকাল্লিদিয়াতের মতাদর্শ লালন করতেন ও আইম্মায়ে মুজতাহিদীনগনকে গালা-গালি করতেন। তার থেকেই সর্ব প্রথম উপমাহদেশে আহলে হাদিসের মতাদর্শী তৈরী হতে থাকে যা পরবর্তিতে “আহলে হাদিস” একটি পথভ্রুষ্ট দলে রুপ নেয়।

সুত্রসমূহ

نزھة الخواطر: 1003 وکان عبد الحق بن فضل اللہ لا یتقید بمذھب ولا یقلد أحداً في شیٴ من أمور دینیة بل یعمل بنصوص الکتاب والسنة ویجتھد برأیہ ولذلک جرت بینہ وبین الأحناف مباحثات کثیرة فی الاجتھاد والتقلید، ومن مصنفاتہ الدر الفرید فی المنع عن التقلید 

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 493 জন।

আহলে হাদিস বা গইরে মুকাল্লিদ শায়খদের বক্তব্য শোনা, তাদের বই পড়া ইমানের জন্য ক্ষতিকর!

ফতওয়া কোডঃ 121-পফি,বিপ্র-17-05-1443

প্রশ্নঃ

আমি একজন সাধারন মানুষ, আলেম নই, আহলে হাদিস বা গইরে মুকাল্লিদ শায়খদের (শায়খ আঃ রাজ্জাক বিন ইউসুফ, শায়খ মতিউর রহমান মাদানী, শায়খ মুজাফফর বিন মুহসিন প্রমুখদের) বক্তব্য শোনা বা তাদের বই পড়া কেমন? আমি কি তাদের বক্তব্য শুনতে পারবো? বা বই পড়তে পারবো?

সমাধানঃ

بسم اللہ الرحمن الرحیم

আহলে হাদিস বা গইরে মুকাল্লিদ শায়খদের বক্তব্য শোনা যাবে না এবং তাদের লিখিত বই পড়া যাবে না। কারন তারা কুরআন ও সুন্নাহের মনগড়া ব্যাখ্যা করেন, যা একজন মুসলমানের ইমান নষ্টের জন্য যতেষ্ঠ।

কুরআন-সুন্নাহ, ইজমা-কিয়াস, সালফে সালেহীনদের আমাল সমূহকে অবজ্ঞা করে নিজের মনগড়া কথা সহিহ হাদিসের নামে সমাজে প্রচারের প্রধান কারিগড় এই আহলে হাদিস বা গইরে মুকাল্লিদ শায়খরা।

মূলত এরা ফিৎনাবাজ, তাই খুব সতর্কতার সাথে এদের থেকে নিজে ও সকলকে বিরত রাখা একান্ত কর্তব্য।

সুত্রসমূহ

سورة البقرة: 217 وَالْفِتْنَةُ أَكْبَرُ مِنَ الْقَتْلِ

سورة النساء: 115 وَمَن يُشَاقِقِ ٱلرَّسُولَ مِنۢ بَعْدِ مَا تَبَيَّنَ لَهُ ٱلْهُدَىٰ وَيَتَّبِعْ غَيْرَ سَبِيلِ ٱلْمُؤْمِنِينَ نُوَلِّهِۦ مَا تَوَلَّىٰ وَنُصْلِهِۦ جَهَنَّمَ ۖ وَسَآءَتْ مَصِيرًا

سورة المائدة: 2 وَتَعَاوَنُوا عَلَى الْبِرِّ وَالتَّقْوَىٰ ۖ وَلَا تَعَاوَنُوا عَلَى الْإِثْمِ وَالْعُدْوَانِ ۚ وَاتَّقُوا اللَّهَ ۖ إِنَّ اللَّهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ

سورة النحل: 43 وَمَا أَرْسَلْنَا مِن قَبْلِكَ إِلَّا رِجَالًا نُّوحِي إِلَيْهِمْ ۚ فَاسْأَلُوا أَهْلَ الذِّكْرِ إِن كُنتُمْ لَا تَعْلَمُونَ

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 720 জন।

মৃত ব্যক্তির চোখে সুরমা লাগানো কেমন?

ফতওয়া কোডঃ 107-আমা,বিপ্র-23-04-1443

প্রশ্নঃ

আসসালামু আলাইকুম। মৃত ব্যক্তির চোখে সুরমা লাগানো কেমন?

সমাধানঃ

بسم اللہ الرحمن الرحیم

মৃত ব্যাক্তিকে সুন্নত তরিকায় কর্পূর সুগন্ধি লাগানো উচিত, সুরমা লাগানো উচিত নয়। সুরমা মুলত সৌন্দর্য্যতার জন্য লাগানো হয়, যা ব্যাক্তির মৃত্যুর পর আর প্রয়োজন নেই। এজন্য ফুকাহায়ে কেরাম বলেছেন মৃত ব্যাক্তিকে সুরমা লাগানো যাবে না।

সুত্রসমূহ

البحرالرائق: 5/278 ( قوله : ولايسرح شعره ولحيته ، ولايقص ظفره وشعره ) ؛ لأنها للزينة ، وقد استغنى عنها، والظاهر أن هذا الصنيع لايجوز. قال في القنية: أما التزين بعد موتها والامتشاط وقطع الشعر لايجوز، والطيب يجوز

الدر المختار: 3/89 ويجعل الحنوط العطر المركب من الأشباه الطيبة غير زعفران وورس على رأسه ولحيته والكافور على مساجده كرامة لها

الفتاوى التاتارخانية: 3\20، رقم-3653 ويوضع الحنوط فى رأسه ولحيته وسائر جسده، وفى السغناقى: الحنوط عطر مركب من أشياء طيبة، وفى القدورى: ولا بأس بسائر الطيب غير الزعفران وغير الورس فى حق الرجل

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 306 জন।

১২ রবিউল আউয়ালের উৎসব পালনকারী কি ঈমানদ্বার?

ফতওয়া কোডঃ 92-বিপ্র-18-03-1443

প্রশ্নঃ ১২ রবিউল আউয়ালের উৎসব পালন করলে ঈমান থাকবে কি?

উত্তরঃ بسم الله الرحمن الرحيم

১২ রবিউল আউয়াল রসুলুল্লাহ সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর জন্মদিন হিসেবে যে উৎসব পালন করা হয়, তা শরীয়ত সম্মত নয়। এই উৎসবের মধ্যে যারা অংশ নেয় নির্ভরযোগ্য তথ্য মতে তারা সকলেই বেদআতী, আর বেদআতী ব্যাক্তির পিছনে তার ইকতেদায় নামাজ পড়া নাজায়েয, বেদআতী ব্যক্তিদের আকিদার উপর নির্ভর করবে তার ইমান আছে কিনা? তাই এমন ব্যক্তি বিশেষের আকিদার ব্যপারে পরিপূর্ন অবগত হয়ে আমাদের জানালে আমরা সঠিক সমাধান দিতে পারবো। অন্যথায় কোন বেদআতীর আকিদা শিরক পর্যন্ত পৈাছলে সে মুশরিকের হুকুমে পরবে, তার ইকতেদায় নামাজ পড়লে উক্ত নামাজ আবার পড়ে নিতে হবে।

সুত্রঃ আল বাহরুর রাইকঃ ১/৩৭০, ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়াঃ ১/৮৪, ফাতাওয়ায়ে শামীঃ ১/৫৬২

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 217 জন।

নির্বাচনি পোস্টারে পরিচয়ের জন্যে ছবি ব্যাবহার করা কি জায়েয?

ফতওয়া কোডঃ 69-বিপ্র,হাহা-4-2-1443

প্রশ্নঃ নির্বাচনি পোস্টারে কি পরিচয়ের জন্যে ছবি ব্যাবহার করা জায়েয?

উত্তরঃ بسم الله الرحمن الرحيم

নির্বাচনি পোস্টারে পরিচয়ের জন্যে ছবি ব্যাবহার করা শরয়ী উজরের অন্তর্ভুক্ত না হওয়ায় তা পরিত্যাজ্য।

সুত্রঃ বুখারী শরিফঃ হাদিস নং ৫৯৫০, উমদাতুল কারীঃ ১০/৩০৯, রদ্দুল মুহতারঃ ২/৪০২, ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়াঃ ৫/৩৭৯, জাওয়াহিরুল ফিকাহঃ ৭/১৭৭-২৮৬

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 205 জন।

পবিত্র কুরআন মাজিদ পড়ে বিনিময় নেওয়া কেমন?

ফতওয়া কোডঃ 63-কুকা,বিপ্র-23-12-1442

প্রশ্নঃ ইসালে সওয়াবের জন্য পবিত্র কুরআন মাজিদ পড়ে বিনিময় নেওয়া কেমন?

উত্তরঃ بسم الله الرحمن الرحيم

ঈসালে সওয়াবের জন্য যদি পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত করা হয়, তাহলে তার বিনিময় দেওয়া-নেওয়া ইসলামের দৃষ্টিতে নিষিদ্ধ।

সুত্রঃ মুসনাদে আহমাদ, হাদিস নং ১৫৫৩৫, শুআবুল ঈমানঃ ২৬২৫, রদ্দুল মুহতারঃ ৬/৫৬

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 215 জন।

বিনা প্রয়োজনে ভ্রু প্লাক করা শরীয়ত সম্মত নয়!

ফতওয়া কোডঃ 26-নামা,বিপ্র-25-10-1442

প্রশ্নঃ গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনে ভ্রু প্লাক করার শরীয়ত সম্মত বিধান কি?

উত্তরঃ بسم الله الرحمن الرحيم

প্রচলিত ফ্যাশন অনুযায়ী ভ্রু প্লাক করা শরীয়ত সম্মত নয়, তবে ভ্রু বড় হয়ে গেলে বা এলোমলো হলে স্বাভাবিক করার জন্য প্রয়োজন অনুযায়ী কাটার অনুমতি আছে, বিনা প্রয়োজনে ভ্রু প্লাক করা জায়েজ নেই।

সুত্রঃ বুখারি শরিফঃ হাদিস নং ৫৯৩৯, রদ্দুল মুহতারঃ ৬/৩৭৩, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাতঃ ১২/৪১

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 216 জন।

শবে বারাআতে হালুয়া রুটির প্রথা পরিত্যাজ্য

ফতওয়া কোডঃ 15-বি-14-08-1442

প্রশ্নঃ

লাইলাতুল বারাআতে হালুয়া রুটি খাওয়া কি সুন্নত না ওয়াজিব?

সমাধানঃ

بسم الله الرحمن الرحيم

শবে বরাতে হালুয়া রুটি পাকানো-খাওয়া ওয়াজিব-সুন্নত তো দূরের কথা, শরীয়তে এর কোন প্রমাণ না থাকায় এ ধরনের আয়োজন করা জায়েজ নেই এবং বড় ধরনের বিদআত, উম্মতে মুসলিমার জন্য এধরনের রুসম সম্পুর্ন পরিত্যাজ্য।

সূত্রসমূহ

احسن الفتاوى: 1/385

فتاوى فقيه الملت: 1/462-466

والله اعلم بالصواب

দারুল ইফতা, রহমানিয়া মাদরাসা সিরাজগঞ্জ, বাংলাদেশ।

আপনিসহ এই ফতওয়াটি পড়েছেন মোট 190 জন।